বুধবার ১৭ এপ্রিল ২০২৪
রাতে মাদকের আড্ডা
পরিত্যক্ত বিদ্যুৎ কেন্দ্রে প্রকাশ্যেই চলছে লুটপাট
গোলাম সারোয়ার সম্রাট, ঠাকুরগাঁও
প্রকাশ: বুধবার, ৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪, ৪:৪০ PM আপডেট: ০৭.০২.২০২৪ ৪:৪৩ PM
ঠাকুরগাঁও রোড এলাকার বিদ্যুৎ কেন্দ্র (ডিজেল পাওয়ার স্টেশন) প্রায় দেড়যুগ হলো বন্ধ হয়েছে। তড়িঘড়ি করে সব যন্ত্রপাতি নিলামে বিক্রিও হয়ে গেছে। সব কর্মকর্তা কর্মচারীকে অন্যত্র বদলি করে দেওয়া হয়েছে। এরপর থেকেই অরক্ষিত বিদ্যুৎ কেন্দ্রটি হয়ে উঠেছে কিছু লুটেরা আর মাদকসেবীদের অভয়ারণ্য। ১৯৬২-৬৪ সালে ঠাকুরগাঁও রোড রেলস্টেশনের পাশে ডয়েজ (জার্মান) কর্তৃক ১০ দশমিক ৫ মেগাওয়াট উৎপাদন ক্ষমতাসম্পন্ন ‘ঠাকুরগাঁও ডিজেল বিদ্যুৎ উৎপাদন কেন্দ্র’ নির্মিত হয়। এই বিদ্যুৎ কেন্দ্রে মোট ৭টি জেনারেটর ছিল। প্রতিটি জেনারেটর ১ দশমিক ৫ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন করত। এই বিদ্যুৎ কেন্দ্রের প্রধান জ্বালানি ছিল লাইট ডিজেল ওয়েল (এলডিও)। বিদ্যুৎ কেন্দ্রের উৎপাদিত বিদ্যুৎ দ্বারা ওয়াপদার (যা পরবর্তীকালে পানি উন্নয়ন বোর্ড) ৩৬০টি গভীর নলকূপে বিদ্যুৎ সরবরাহ ছাড়াও এই এলাকার বিদ্যুৎ চাহিদা পূরণ করা হতো। এরপরেও রংপুর পর্যন্ত এ বিদ্যুৎ কেন্দ্রের উৎপাদিত বিদ্যুৎ সরবরাহ করা হতো। 

ঠাকুরগাঁও ডিজেল বিদ্যুৎ কেন্দ্রটি তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তানে উত্তরাঞ্চলের প্রথম এবং প্রধান বিদ্যুৎ কেন্দ্র হিসেবে বিবেচিত ছিল। ৮০ এর দশকে ডয়েজ (জার্মান) মূল কোম্পানিতে এই মডেলের বিদ্যুৎ কেন্দ্রের খুচরা যন্ত্রাংশ উৎপাদন বন্ধ হয়ে যায়। ফলে বিদ্যুৎ কেন্দ্রটি খুচরা যন্ত্রাংশের অভাবে পূর্ণমাত্রায় উৎপাদন করতে পারতো না। এ সুযোগ কাজে লাগিয়ে একটি মহল স্থানীয়ভাবে উৎপাদিত নিম্নমানের কিছু খুচরা যন্ত্রাংশ সরবরাহ করে লুটপাট শুরু করে। এসব কারণে একদিকে যেমন বিদ্যুৎ কেন্দ্রের উৎপাদন কমে যায়, তেমনি ইউনিট প্রতি খরচ মাত্রাতিরিক্ত বেড়ে যায়। অবশেষে বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড কর্তৃক ২০০৯ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে বিদ্যুৎ কেন্দ্রটি বন্ধ ঘোষণা করে সব কর্মকর্তা কর্মচারীকে অন্যত্র বদলি করে। বিদ্যুৎ কেন্দ্রটি বন্ধ হওয়ার পরই এর সব মালামাল ২০১৬ সালে কেন্দ্রীয়ভাবে টেন্ডারের মাধ্যমে বিক্রি করে দেওয়া হয়। এ টেন্ডার নিয়েও নানা ধরনের অস্বচ্ছতার খবর তখন বিভিন্ন পত্র-পত্রিকায় প্রকাশ হয়েছিল। টেন্ডারের পরই পুরো বিদ্যুৎ কেন্দ্রের এলাকাটি অরক্ষিত হয়ে পড়ে। এরই মধ্যে ২০১৬ সালের অক্টোবর মাসে বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের অপর অংশটি (বিদ্যুৎ বিতরণ বিভাগ) নেসকো নামে কোম্পানিতে রুপান্তরিত হওয়ার পর কার্যত বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের পুরাতন অংশটি দেখার মতো আর কেউ থাকে না। 

এই সুযোগটি কাজে লাগিয়ে স্থানীয় একটি সংঘবদ্ধ চক্র অনেকটা প্রকাশ্যেই (২টি কোলনির) পুরাতন বিদ্যুৎ কেন্দ্রের দরজা, জানালা, কাঁটাতার, লৌহজাত যাবতীয় পোল, খুঁটি, মাটির তলার এইচটি ক্যাবল, সাইন বোর্ড, তিন যুগের পুরাতন কাঁঠাল গাছ এমনকি ইটের দেয়াল পর্যন্ত ভেঙ্গে নিয়ে গেছে। বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের কোটি কোটি টাকার এ সম্পত্তি পরবর্তী ব্যবস্থা গ্রহণ না করা পর্যন্ত নেসকো কর্তৃপক্ষ নজরদারিতে রাখবেন এমন কথা শোনা গেলেও নেসকো ঠাকুরগাঁওয়ের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. সিরাজুল ইসলাম এ প্রসঙ্গে তেমন কোনো তথ্য দিতে পারেননি। তবে বিদ্যুৎ বিতরণ বিভাগের উচ্চমান সহকারী মোনায়েম হোসেন বলেন, এগুলো পাহারা দেওয়ার জন্য আনসার রাখা হয়েছে। গাছ কেটে নেওয়া আর স্থাপনা ভেঙে নেওয়ার কথা বললে তিনি জানান, বিষয়টি আমাদের জানা নেই, খোঁজ নিচ্ছি।

এছাড়াও পরিত্যক্ত বিদ্যুৎ কেন্দ্র এলাকাটি দিন এবং রাতে সমানভাবে মাদকসেবীদের বিচরণ ভূমিতে পরিণত হয়েছে। কোনো ধরনের রাখ ঢাক না করেই দল বেঁধে মাদকসেবীরা এখানে প্রবেশ করে তাদের কাজ চালিয়ে যাচ্ছে। বিদ্যুৎ কেন্দ্রের পাশের বস্তিতে বসবাসকারী নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক অনেকেই বলেন, ইট খুলে ছয় হাজার টাকা দরে কারা বিক্রি করেছে, কারা কিনেছে সবাই জানে। এখন শুরু হয়েছে গাছ কাটা। কারা গাছ কাটছে সেটাও সবাই জানে। যাদের মাল তারা বাধা দেয় না, আমরা কেন বাধা দিয়ে বিপদ ডেকে আনবো? স্থানীয় সাধারণ মানুষেরা মনে করেন, মাদকের ভয়াল ধাবা থেকে এলাকার কোমলমতি কিশোরদের রক্ষা করতে এবং সরকারি সম্পত্তি রক্ষার্থে প্রশাসনের এদিকে দ্রুত দৃষ্টি দেওয়া প্রয়োজন।

আজকালের খবর/ওআর








সর্বশেষ সংবাদ
ওমানে বন্যায় ১৮ জনের মৃত্যু, বৃষ্টিতে ডুবে গেছে দুবাই বিমানবন্দর
বার্সাকে কাঁদিয়ে সেমিফাইনালে পিএসজি
তেজগাঁওয়ে ট্রেন লাইনচ্যুত, ঢাকার পথে ট্রেন বন্ধ
ঢাকাসহ পাঁচ বিভাগে ঝড়-শিলাবৃষ্টির পূর্বাভাস
বাংলাদেশে পালিয়ে এলো মিয়ানমারের আরো ৫০ সীমান্তরক্ষী
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
নিসচার ১০ম মহাসমাবেশ উদযাপন কমিটি গঠন
মালয়েশিয়ায় তালাবদ্ধ ঘরে মিললো ঢাকার শীর্ষ সন্ত্রাসী জয়ের মরদেহ
ইরানের ওপর নতুন নিষেধাজ্ঞার কথা ভাবছে যুক্তরাষ্ট্র ও ইইউ
উপজেলা নির্বাচন : বিশ্বনাথে ৩ পদে ২০ প্রার্থীর মনোনয়নপত্র জমা
অস্ত্রসহ কেএনএফের আরো ৮ সদস্য আটক
Follow Us
সম্পাদকমণ্ডলীর সভাপতি : গোলাম মোস্তফা || সম্পাদক : ফারুক আহমেদ তালুকদার
সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : হাউস নং ৩৯ (৫ম তলা), রোড নং ১৭/এ, ব্লক: ই, বনানী, ঢাকা-১২১৩।
ফোন: +৮৮-০২-৪৮৮১১৮৩১-৪, বিজ্ঞাপন : ০১৭০৯৯৯৭৪৯৯, সার্কুলেশন : ০১৭০৯৯৯৭৪৯৮, ই-মেইল : বার্তা বিভাগ- [email protected] বিজ্ঞাপন- [email protected]
কপিরাইট © আজকালের খবর সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | Developed By: i2soft